ঢাকা, শনিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ রজব ১৪৪২

তথ্যপ্রযুক্তি

অপো রেনো সিরিজের জয়যাত্রা

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৬, ২০২১
অপো রেনো সিরিজের জয়যাত্রা

ঢাকা: স্মার্টফোন জগতে অগ্রদূত হয়ে উঠেছে গ্লোবাল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো। তরুণদের পছন্দের এ স্মার্টফোন ব্র্যান্ডটি তাদের সাম্প্রতিক স্মার্টফোনগুলোর প্রতিটি বিভাগে, তা হোক পারফরম্যান্স, বা ডিসপ্লে বা ব্যাটারিসহ সব ক্ষেত্রেই ক্রমাগত উন্নতি সাধন করে যাচ্ছে।

আর স্মার্টফোন হালের তরুণদের প্রাথমিক ডিভাইসে পরিণত হওয়ায় উন্নত ক্যামেরা থাকাটা এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর তরুণ প্রজন্মের স্মার্টফোন ফটোগ্রাফির অভিজ্ঞতাকে আরও একধাপ এগিয়ে নিতে ২০১৯ সালের দিকে অপো প্রথম রেনো ফোন বাজারে নিয়ে আসে।
অনন্য ডিজাইন, উন্নত পারফরম্যান্স ও অসাধারণ ক্যামেরায় রেনো সিরিজের সবগুলো ফোনই গ্রাহকপ্রিয়তা পেয়েছে। একে একে প্রতিটি ফোনই পেয়েছে ব্যাপক সাফল্য।

রেনো সিরিজের ফোনগুলো শুরু কর্মক্ষমতার জন্যই না, এর অনন্য ডিজাইনের কারণে তরুণ প্রজন্মের লাইফস্টাইলের সঙ্গে খুব সহজেই খাপ খাইয়ে যায়। পাশাপাশি বহুমুখী ব্যবহারিক ক্ষমতার কারণে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ফোনগুলো ব্যবহারে তরুণরা খুব সহজেই তাদের সৃজনশীলতাকে সবার সামনে তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছেন।

শুরু থেকেই অন্যান্য সব ফিচারের সঙ্গে অপো তাদের ফোনগুলোর ক্যামেরায় উন্নতসাধনে মন দেয়, যা রেনো সিরিজে এসে এক নতুন মাত্রা লাভ করে। ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহারে রেনো সিরিজের প্রতিটি ফোনে অপো ফিউচারিস্টক সব ফিচার আনতে থাকে।

অসাধারণ ভিউইং এক্সপেরিয়েন্সের জন্যে বিশাল ডিসপ্লের সঙ্গে অপো নিজস্ব কালারওএস-এর চমৎকার ইন্টারফেস, ক্যামেরায় উন্নত অ্যালগরিদম ও আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহার, সুদৃশ্য ইফেক্টসহ উন্নত সেলফি ক্যামেরা, সব ধরনের কাজের জন্যে সর্বাধুনিক ও দ্রুততম প্রসেসর, আকর্ষণীয় অনন্য ডিজাইনে অপোর রেনো সিরিজের ফোনগুলো গ্রাহক প্রিয়তার শীর্ষে উঠে আসে। এর সঙ্গে রেনো সিরিজে স্মার্ট সেন্সরের ব্যবহারে ‘এয়ার কন্ট্রোলের’ মতো যুগান্তকারী ফিচার আনা হয়, যার মাধ্যমে ডিসপ্লে স্পর্শ না করেই কল গ্রহণ, ইউটিউবে ভিডিও বদলানোর মতো কাজ করার সুবিধা মেলে। আর প্রতিটি ফোনেই ডিসপ্লের স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও বাড়িয়ে ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে বৈপ্লবিক উন্নতি আনা হয়।

রেনো সিরিজের সর্বশেষ স্মার্টফোন– রেনো৫-এর এআই মিক্সড পোর্ট্রেট ক্যামেরায় খুব সহজেই ডুয়াল এক্সপোজার ছবি তোলার মাধ্যমে স্মার্টফোন ফটোগ্রাফিতে যোগ হয়েছে নতুন একটি পালক। ফোনটির ৬৪ মেগাপিক্সেলের অসাধারণ রিয়ার কোয়াডক্যাম ম্যাট্রিক্সে আরও আছে ডুয়াল-ভিউ ভিডিও মোড। এতে একই সঙ্গে রিয়ার ক্যামেরা ও ফ্রন্ট ক্যামেরায় ভিডিও করা যায়। ৪৪ মেগা পিক্সেলের ক্রিস্টাল ক্লিয়ার ফ্রন্ট ক্যামেরা অসাধারণ ডিটেইলসে ছবি কিংবা ভিডিও ধারণে সক্ষম। আর ফুল ডাইমেনশন ফিউশন (এফডিএফ) পোর্ট্রেট ভিডিও সিস্টেম এবং এআই হাইলাইট ভিডিও’র মতো নান্দনিক সব ফিচারের সমন্বয়ে পোর্ট্রেট ফটো ও ভিডিও ধারণে আনবে নতুন বিস্ময়। এআই হাইলাইট ভিডিও মোডে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের অসাধারণ মেলবন্ধনে ক্যামেরা আশাপাশের আলোর পরস্থিতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বুঝতে পারে এবং আইএসও, শাটার স্পিড ও এক্সপোজারের অনন্য সমন্বয় সাধন করে অন্ধকারেও আলোকিত ছবি ও ভিডিও ধারণে অনুপ্রাণিত করে।  

এছাড়াও রেনো৫-এ ফুল ডাইমেনশন ফিউশন (এফডিএফ) পোর্ট্রেট ভিডিও সিস্টেমে বিশেষ পোর্ট্রেট ভিডিও ইফেক্টের ফলে নান্দনিক পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফি করা যায়।
অপো বরাবরই রেনো সিরিজের নতুন ফোনে এআই খাতে আশ্চর্যজনক উন্নতিসাধন করছে। যেকোন কাজে প্রয়োজনীয় কর্মক্ষমতার জন্য শক্তিশালী চিপসেট ব্যবহার করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় রেনো৫-এ ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন চিপসেট, যা তরুণদের স্মার্টফোন ব্যবহারে দেবে অসামান্য গতি। তাছাড়া এর ৯০ হার্টজ এফএইচডি অ্যামোলেড ডিসপ্লেতে পছন্দের ভিডিও কন্টেন্ট কিংবা অনলাইন গেমিং এর অভিজ্ঞতা হবে আরও চমৎকার।

এছাড়াও প্রতিটি ফোনের চার্জিং-এ ক্রমাগত উন্নতি করছে অপো। শুরু থেকে রেনো সিরিজের ফোনে ফাস্ট চার্জিং আনে অপো। এবারের রেনো৫-এও এর ব্যতিক্রম হয়নি। ৫০ ওয়াটের ফ্ল্যাশ চার্জের ব্যবহারে এ ফোনের চার হাজার ৩১০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি মাত্র ৪৮ মিনিটে সম্পূর্ণ চার্জ দেওয়া যায়।

স্মার্টফোন ফটোগ্রাফি উৎসাহীদের অভিজ্ঞতাকে অনেকখানি সামনে এগিয়ে নিতে অপো সবসময়ই সচেষ্ট। এ কারণেই অপো রেনো সিরিজের ফোনগুলো দিন দিন ফ্যান ফেভারিট হয়ে উঠছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৬, ২০২১
আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa